Sale!

ড্যাডি সমগ্র : গল্প

Rated 5.00 out of 5 based on 1 customer rating
(1 customer review)

গোলাম কাসেম ড্যাডির গল্পের কাহিনি রোমাঞ্চকর; ভাষা মধুর ও চলমান। গল্পগুলো নারীচরিত্র আর অ্যাডভেঞ্চারে ভরা। তাঁর নারীদের সিংহভাগ ছিলেন প্রাগ্রসর চেতনরি সঞ্জীবিত প্রতীক। তিনি হিন্দু ও মুসলমান উভয় সমাজ থেকে চরিত্র আহরণ করতেন। তাঁর গল্পে রয়েছে অসাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙি, মানুষের আত্মীক সম্পর্ক ও এর টানাপোড়েনের নানামুখী বিশ্লেষণ। তিনি মুসলিম লেখকদের ভেতর প্রথম সার্থক গল্পকার। তাঁর শিল্প ও সাহিত্যকর্মে আধুনিক আঙ্গিক এবং সমকালীন সমাজজীবন অন্তবর্তী হয়ে উঠেছে।
শিল্পের মোহ ছাড়া পৃথিবীর আর কোনো মোহ তাঁকে গ্রাস করতে পারেনি। তিনি সারা জীবন নির্মোহভাবে লিখে গেছেন। নিজেকে নিজের ভেতর গুটিয়ে রেখেছেন; সাধকরা যেমনটা করে থাকেন। ফলে আমাদের সমাজের ভেতরকার মানুষ তাঁকে ঠিক বুঝতে বা বুঝে উঠতে পারেনি। বোঝার যে চেষ্টা করেছেনে এমনও নয়। ফলে তাঁর মতো একজন শক্তিমান কথাশিল্পীর লেখার সঙ্গে এই প্রজন্মের অনেকেই পরিচিত নন।
গোলাম কাসেম ড্যাডির ১৯১৮ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত লেখা ৪৬টি গল্পের এক অনবদ্য রচনাসম্ভার-ড্যাডিসমগ্র : গল্প।

৳ 1,495.00 ৳ 1,196.00

In stock

SKU: 9789848125076 Categories: , , Tags: , , ,

Book Details

Weight 1090 kg
Dimensions 6.5 × 1.5 × 9.1 in
Language

Binding Type

ISBN

Publishers

Release date

Pages

Height

9.1

Width

6.5

About The Author

গোলাম কাসেম ড্যাডি

কিংবদন্তি আলোকচিত্রী ও প্রথম আধুনিক ধারার ছোটগল্প লেখক। আদি বাড়ি ফরিদপুরের মাদারীপুরে। জন্ম ১৮৯৪ সালের ৫ নভেম্বর, হিমালয় পাহাড়ের পাদদেশের জলপাইগুড়িতে।

শৈশব কাটে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের নানা জায়গায়। কলকাতা ইউনিভার্সিটির ইনফ্যান্ট্রি কোরের সদস্য হিসেবে ১৯১৫ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। রণ-প্রশিক্ষণের ময়দানেই গল্প লেখার সূচনা।

১৯১২ সালে এনসাইন বক্স ক্যামেরায় ছবি তুলতে শুরু করেন। ১৯১৯ সালে ব্রিটিশ সরকারের সাব-রেজিস্ট্রার হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। ১৯৪৯ সালে রাজশাহীর ডিস্ট্রিক্ট রেজিস্ট্রার হিসেবে অবসরগ্রহণ করেন। নিঃসন্তান ছিলেন। শ্রদ্ধার শিরোপা হিসেবে তিনি ‘ড্যাডি’ স্বীকৃতি পান।

১৯৫১ সালে ট্রপিক্যাল ইনস্টিটিউট অব ফটোগ্রাফি ও ১৯৬২ সালে ক্যামেরা রিক্রিয়েশন ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন। সাহিত্যকর্মের জন্য ১৯৭৭ সালে নাসিরউদ্দীন স্বর্ণপদক ও ২০০৪ সালে তৃতীয় আন্তর্জাতিক ছবি মেলায় আজীবন সম্মাননা (মরণোত্তর) লাভ করেন।

১৯৯৮ সালের ৯ জানুয়ারি ১০৪ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

গোলাম কাসেম ড্যাডির গল্পের কাহিনি রোমাঞ্চকর; ভাষা মধুর ও চলমান। গল্পগুলো নারীচরিত্র আর অ্যাডভেঞ্চারে ভরা। তাঁর নারীদের সিংহভাগ ছিলেন প্রাগ্রসর চেতনরি সঞ্জীবিত প্রতীক। তিনি হিন্দু ও মুসলমান উভয় সমাজ থেকে চরিত্র আহরণ করতেন। তাঁর গল্পে রয়েছে অসাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙি, মানুষের আত্মীক সম্পর্ক ও এর টানাপোড়েনের নানামুখী বিশ্লেষণ। তিনি মুসলিম লেখকদের ভেতর প্রথম সার্থক গল্পকার। তাঁর শিল্প ও সাহিত্যকর্মে আধুনিক আঙ্গিক এবং সমকালীন সমাজজীবন অন্তবর্তী হয়ে উঠেছে।
শিল্পের মোহ ছাড়া পৃথিবীর আর কোনো মোহ তাঁকে গ্রাস করতে পারেনি। তিনি সারা জীবন নির্মোহভাবে লিখে গেছেন। নিজেকে নিজের ভেতর গুটিয়ে রেখেছেন; সাধকরা যেমনটা করে থাকেন। ফলে আমাদের সমাজের ভেতরকার মানুষ তাঁকে ঠিক বুঝতে বা বুঝে উঠতে পারেনি। বোঝার যে চেষ্টা করেছেনে এমনও নয়। ফলে তাঁর মতো একজন শক্তিমান কথাশিল্পীর লেখার সঙ্গে এই প্রজন্মের অনেকেই পরিচিত নন।
গোলাম কাসেম ড্যাডির ১৯১৮ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত লেখা ৪৬টি গল্পের এক অনবদ্য রচনাসম্ভার-ড্যাডিসমগ্র : গল্প।

1 review for ড্যাডি সমগ্র : গল্প

  1. Rated 5 out of 5

    Leon

    সত্যি অসাধারণ বইটি।

Add a review

Your email address will not be published. Required fields are marked *