Sale!

দ্য প্রাইস অব ইনইকুয়ালিটি (অসমতার খেসারত)

অসমতার সামাজিক প্রভাব ক্রমাগত এখন বর্ধিষ্ণুভাবে বোধগম্য-যেমন উচ্চমাত্রায় অপরাধ সংঘটন, স্বাস্থ্য এবং মানসিক অসুস্থতা, নিম্নমাত্রিক শিক্ষাদীক্ষা এবং সেই সঙ্গে স্বল্পমাত্রার জীবনায়ু ইত্যাদি। কিন্তু অসমতার কারণগুলো কী? কেন এটি দ্রুত বর্ধিষ্ণু এবং এর অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ফলাফলই বা কীরূপ? এই ব্যতিক্রমধর্মী বইয়ে জোসেফ স্টিগলিজ এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়েছেন।

তিনি দেখিয়েছেন তারা কীভাবে তাদের কৌশলগুলো ব্যবহার করেন। এখানে বাজার যেমন সুদক্ষ নয় তেমনই তা সুস্থিরও নয়। ক্রমাগত বাজার উত্তরোত্তরভাবে বৃদ্ধিমুখী যা প্রতিযোগিতাহীন পরিস্থিতির জন্ম দেয়। ফলে এখানে এর প্রভাবে অর্থ ও সম্পদ ক্রমান্বয়ে কতিপয় ব্যক্তির হাতে কেন্দ্রীভূত হয়ে উঠছে; প্রবৃদ্ধি এবং জিডিপি’র পরিমাণ নিম্ন গতিসম্পন্ন হয়ে উঠছে।
স্টিগলিজ যুক্তিসহকারে সেইসঙ্গে দেখিয়েছেন যে, রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানসমূহ এ সকল অপতৎপরতার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার পরিবর্তে বরং তা প্রাশই আরও উস্কে দিচ্ছে। স্টিগলিজ যুক্তিসহকারে একটি ভিন্ন পথ দেখিয়েছেন যার মাধ্যমে এ অবস্থা হতে মুক্ত হয়ে ‘অন্যরকম বিশ্ব নির্মাণ সম্ভব। দ্য প্রাইস অব ইনইকুয়ালিটি বইয়ে কার্যত মুক্তবাজার ধারণার বিরুদ্ধে একটি শক্তিশালী এবং অপরিহার্য সমালোচনা উপস্থাপন করা হয়েছে।

৳ 795.00 ৳ 636.00

5 in stock

Book Details

Weight 1 kg
Dimensions 5.7 × 8.3 × 1.2 in
Language

Binding Type

ISBN

Publishers

Release date

Pages

Height

8.3

Width

5.7

About The Author

ড. মোহাম্মদ আবদুর রশীদ

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ের অধ্যাপক। বর্তমানে তিনি অবসর জীবনযাপন করছেন। তিনি ১৯৭৯ সাল হতে ১৯৯৯ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন। ১৯৯৬ সালে তিনি অধ্যাপক পদ অর্জন করেন এবং বিভাগীয় সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৯ সালে তিনি বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ের অধ্যাপক পদে যোগদান করেন এবং পরবর্তী সময়ে ডিন-এর পদে কাজ করেন। অসমতার খেসারত তাঁর ১৩তম অনুবাদ গ্রন্থ। তিনি যথাক্রমে স্যামুয়েল দি হান্টিংটন-এর দুটি গ্রন্থ, যোসেফ ই. স্টিগলিজের একটি গ্রন্থ, নোম চমস্কির তিনটি গ্রন্থ, নেলসন ম্যান্ডেলার একটি গ্রন্থ, ফরিদ জাকারিয়ার একটি গ্রন্থ, ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে হামুদুর রহমানের নেতৃত্বে গঠিত পাকিস্তান সরকারের তদন্ত কমিটির বাছাইকৃত অধ্যায়সমূহ, ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে ভারতের বিএসএফের তৎকালীন ডিজি রুস্তমজীর স্মৃতিচারণমূলক গ্রন্থসহ মৌলানা ওয়াহিদ উদ্দীন খানের ইসলাম ধর্ম বিষয়ক দুটি গ্রন্থ অনুবাদ করেছেন। রাজনীতি ও সামাজিক বিজ্ঞান জ্ঞানকোষ শীর্ষক তাঁর একটি মৌলিক গ্রন্থ দুটি খণ্ডে প্রকাশিত হয়েছে। তিনি যথাক্রমে যুদ্ধাপরাধী জামায়াত এবং জঙ্গি প্রসঙ্গ শীর্ষক ৬টি খণ্ড সম্পাদনা করেছেন। গণজাগরণ মঞ্চের ওপর তাঁর সম্পাদিত একটি পুস্তক প্রকাশিত হয়েছে। দৈনিক খবরের কাগজে প্রকাশিত তাঁর কলামসমূহ দুটি খণ্ডে প্রকাশিত হয়েছে।

অসমতার সামাজিক প্রভাব ক্রমাগত এখন বর্ধিষ্ণুভাবে বোধগম্য-যেমন উচ্চমাত্রায় অপরাধ সংঘটন, স্বাস্থ্য এবং মানসিক অসুস্থতা, নিম্নমাত্রিক শিক্ষাদীক্ষা এবং সেই সঙ্গে স্বল্পমাত্রার জীবনায়ু ইত্যাদি। কিন্তু অসমতার কারণগুলো কী? কেন এটি দ্রুত বর্ধিষ্ণু এবং এর অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ফলাফলই বা কীরূপ? এই ব্যতিক্রমধর্মী বইয়ে জোসেফ স্টিগলিজ এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়েছেন।

তিনি দেখিয়েছেন তারা কীভাবে তাদের কৌশলগুলো ব্যবহার করেন। এখানে বাজার যেমন সুদক্ষ নয় তেমনই তা সুস্থিরও নয়। ক্রমাগত বাজার উত্তরোত্তরভাবে বৃদ্ধিমুখী যা প্রতিযোগিতাহীন পরিস্থিতির জন্ম দেয়। ফলে এখানে এর প্রভাবে অর্থ ও সম্পদ ক্রমান্বয়ে কতিপয় ব্যক্তির হাতে কেন্দ্রীভূত হয়ে উঠছে; প্রবৃদ্ধি এবং জিডিপি’র পরিমাণ নিম্ন গতিসম্পন্ন হয়ে উঠছে।
স্টিগলিজ যুক্তিসহকারে সেইসঙ্গে দেখিয়েছেন যে, রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানসমূহ এ সকল অপতৎপরতার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার পরিবর্তে বরং তা প্রাশই আরও উস্কে দিচ্ছে। স্টিগলিজ যুক্তিসহকারে একটি ভিন্ন পথ দেখিয়েছেন যার মাধ্যমে এ অবস্থা হতে মুক্ত হয়ে ‘অন্যরকম বিশ্ব নির্মাণ সম্ভব।’ দ্য প্রাইস অব ইনইকুয়ালিটি বইয়ে কার্যত মুক্তবাজার ধারণার বিরুদ্ধে একটি শক্তিশালী এবং অপরিহার্য সমালোচনা উপস্থাপন করা হয়েছে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “দ্য প্রাইস অব ইনইকুয়ালিটি (অসমতার খেসারত)”

Your email address will not be published. Required fields are marked *